ঢাকা, বাংলাদেশ │ মঙ্গলবার, ৫ জুলাই ২০২২
প্রচ্ছদ » চট্টগ্রাম » সমবায় আবাসিক এলাকায় খুঁটি সরানোকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলা, আহত ২

সমবায় আবাসিক এলাকায় খুঁটি সরানোকে কেন্দ্র করে সন্ত্রাসী হামলা, আহত ২

মো: মাইন উদ্দিন (সাগর), চট্টগ্রাম প্রতিনিধি: বায়েজীদ বোস্তামী থানাধীন সমবায় আবাসিক এলাকায় মসজিদ গেইটে লাইটের খুঁটি সরানোকে কেন্দ্র করে সমিতির নিরীহ সদস্য, মসজিদের প্রতিষ্ঠাতা এবং তত্ত্বাবধায়ক মোঃ মহিউদ্দিন ও তার ভাড়াটিয়া ইমরানের উপর সন্ত্রাসী হামলার অভিযোগ উঠেছে।

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, বায়েজীদ সমবায় আবাসিক মসজিদের সামনের খাম্বা জোড় পূর্বক তুলে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে ফটিকছড়ি উপজেলার নুরুল ইসলামের ছেলে এইচ এম নাছির উদ্দিন, মৃত আবুল কাশেমের ছেলে আবু রেজা, খুইল্ল্যা মিয়ার ছেলে রফিক, সানি, ফখরুল সহ মুখোশ বাঁধা কিছু সন্ত্রাসী দলের সদস্য।

খুঁটি সরাতে বাধা দিলে একপর্যায়ে নিরীহ মহিউদ্দিন ও তার ভাড়াটিয়া ইমরানের উপর ক্ষিপ্ত হয়ে নাসিরের নেতৃত্বে ধাড়ালো ছুরি দিয়ে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করার অভিযোগ করেন ভুক্তভোগী মহিউদ্দিন।

মহিউদ্দিন আরো বলেন, উক্ত চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা জোড়পূর্বক মসজিদের খুঁটি ও লাইট সরিয়ে নিতে গেলে আমি সমিতির সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নির্দেশক্রমে, নাছির গ্যাংদের খাম্বা সরাতে নিষেধ করি। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে নাছির, রেজা, রফিক ও অজ্ঞাত প্রায় ১০ থেকে ১৫ জনের একটি সন্ত্রাসীগ্রুপ আমাকে ও আমার ভাড়াটিয়া ইমরানকে কুপিয়ে রক্তাক্ত জখম করে। আমি ও আমার ভাড়াটিয়া ইমরানকে আমার পার্শ্ববর্তী এলাকার ইলিয়াস, বাতেন, ইন্জিনিয়ার সোহেল, সুজন, ইসলাম হোসেন রনি, আজম, হাসান উদ্ধার করে চ.মে.ক হাসপাতালে নিয়ে যায়। আমি প্রাথমিক চিকিৎসা নিয়েচি এবং আমার ভাড়াটিয়া ইমরান চ.মে.কে হাসপাতালের ২৮নং ওয়ার্ডে চিকিৎসাধীন রয়েছে। তার মাথার বামপাশে ৫টি সেলাই করা হয়েছে, ইমরানের অবস্থা এখনো আশঙ্কাজনক।

বিভিন্ন সূত্রে জানা যায় যে, মৃত আবুল কাশেমের ছেলে আবু রেজা সমবায় আবাসিক সমিতি লিমিটেড এর সাধারণ সম্পাদক থাকাকালীন সমিতির সদস্যদের টাকা আত্নসাৎ ও মসজিদের জায়গা বিক্রি করে কোটি টাকা আত্নসাৎ করেন। আত্নসাদের বিষয়ে বিভিন্ন সময় উক্ত সমিতির সদস্যরা জেলা সমবায় কর্মকর্তার বরাবরে লিখিত আকারে অভিযোগ দায়ের করছেন। কিন্তু এখনও অভিযোগের ভিত্তিতে দৃশ্যমান কোন পদক্ষেপ প্রত্যক্ষ করা যায়নি।

তৎকালীন সময়ে আবু রেজার দুর্নিতি ও অর্থ আত্নসাতের বিরুদ্ধে অভিযোগকারীদের মধ্যে মহিউদ্দিন অন্যতম। ধারানো করা হচ্ছে, সেই প্রতিবাদের প্রতিশোধ নিতেই সাবেক সাধারণ সম্পাদক আবু রেজার নেতৃত্বে খুঁটি সরানোকে কেন্দ্র করে এই হামলা চালানো হয়।

ভুক্তভোগী মহিউদ্দিন বাংলার শিরোনাম’কে বলেন, প্রকৃত ঘটনা আড়াল করতে একটি মহল ঘটনাটিকে ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জোড় অপচেষ্টা চালাচ্ছে।

উক্ত ঘটনায় মহিউদ্দিন বাদি হয়ে বায়েজীদ বোস্তামী থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন।

মতামত দিন