ঢাকা, বাংলাদেশ │ সোমবার, ২৩ মে ২০২২
প্রচ্ছদ » জাতীয় » বাস পোড়ানোর ৯ মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

বাস পোড়ানোর ৯ মামলায় বিএনপির ২৮ নেতাকর্মী রিমান্ডে

ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনের মধ্যে রাজধানীর বিভিন্ন স্থানে বাস পোড়ানো এবং পুলিশের কাজে বাধা দেয়ার ঘটনায় বিভিন্ন থানায় করা ৯টি মামলায় আসামি বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের ২৮ জন নেতাকর্মীকে বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে পাঠিয়েছেন আদালত।

শুক্রবার ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম ধীমান চন্দ্র মণ্ডল আদালত এই রিমান্ড আদেশ দেন। এদিন আসামিদের আদালতে হাজির করে তাদের বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ড চেয়ে আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তারা। শুনানি শেষ বিচারক ওই রিমান্ড আদেশ দেন।

শাহবাগ থানায় দায়ের করা পৃথক দুই মামলায় ৬ আসামির তিনদিন করে রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন- হযরত আলী, মঈনউদ্দিন, আবু সাঈদ শান্ত, আবুল কালাম আজাদ, আবু সুফিয়ান ও সোহেল।

পল্টন থানার এক মামলায় ২ জন তিনদিন করে রিমান্ডপ্রাপ্তরা হলেন- আলিজা আল আহমেদ মিটু ও মেহেদী হাসান ইয়াছিন। আর পাঁচদিন করে রিমান্ডপ্রাপ্তরা ৭ আসামিরা হলেন- একে ফজলুর বারী, আলতাফ হোসেন, নাঈম প্রধান, আলিফ মাহমুদ, হুমায়ুন রশীদ টুটুল, খন্দকার মাশুকুর রহমান ও রাশেদুজ্জামান। আদালতে এসব আসামিদের সাত দিন করে রিমান্ড চেয়েছিল পল্টন থানা পুলিশ।

মতিঝিল থানার এক মামলায় আবদুর রহমান তাহের নামের একজনকে দুইদিনের রিমান্ডে দেয়া হয়। একই থানায় আরেক মামলায় জাকির হোসেন নামের একজনকে তিনদিনের রিমান্ডে পাঠানো হয়। এ দুই মামলায় আসামি দুইজনের পাঁচদিন করে রিমান্ড চেয়েছিল মতিঝিল থানা পুলিশ।

বংশাল থানায় একটি মামলায় দুইদিনের রিমান্ডে যাওয়া ২ আসামি হলেন- সফিউদ্দিন আহমেদ সেন্টু ও মৃদু রহমান জনি ওরফে মোরশেদুর রহমান জনি।

কলাবাগান থানায় একটি মামলায় দুইদিন করে রিমান্ডে পাঠানো ২ আসামি হলেন- মাহিফুর রহমান টিপু ও মাঈনউদ্দিন চৌধুরী।

এছাড়া সূত্রাপুর থানায় একটি মামলায় ৪ আসামির তিনদিন করে রিমান্ডে দেন আদালত। খিলক্ষেত থানায় একটি মামলায় দুইদিনের রিমান্ডে যাওয়া ২ আসামি হলেন মশিউর রহমান মসি ও ইঞ্জিনিয়ার নজরুল ইসলাম।

তুরাগ থানায় একটি মামলায় সোহেল মিয়া নামের এক আসামির তিনদিনের রিমান্ড আদেশ হয়েছে।

মামলার এজাহার থেকে জানা যায়, ১৯৭৪ সালের বিশেষ ক্ষমতা আইন ও বিস্ফোরক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলাগুলো করা হয়েছে। মামলার বাদী পুলিশ।

এসব মামলায় আসামি করা হয়েছে ৪৪৬ জনকে। গ্রেফতার করা হয়েছে ২০ জনকে। আসামিদের বেশিরভাগই বিএনপি ও এর অঙ্গসংগঠনের নেতাকর্মী। এসব মামলায় অজ্ঞাতনামা আসামিও রয়েছেন।

মতিঝিল থানায় করা মামলায় আসামিদের মধ্যে ঢাকা দক্ষিণ সিটি নির্বাচনে বিএনপির পরাজিত মেয়রপ্রার্থী ইশরাক হোসেন রয়েছেন।

বৃহস্পতিবার ও শুক্রবার মোট ২০ জনকে গ্রেফতার করা হয়। তাদের মধ্যে মতিঝিলে ১ জন, শাহবাগে ৬, পল্টনে ৯, বংশালে ২ জন ও কলাবাগানে ২ জনকে গ্রেফতার করা হয়। এদের মধ্যে ১৭ জনকে শুক্রবার বিভিন্ন মেয়াদে রিমান্ডে পেয়েছে পুলিশ।

প্রসঙ্গত, ঢাকা-১৮ আসনের উপনির্বাচনের দিন বৃহস্পতিবার রাজধানীর বিভিন্ন এলাকায় ৯টি বাস পুড়িয়ে দেয়া হয়। আগুনে পুড়ে যাওয়া বাসের মধ্যে ৩টি সরকারি।

স্বাধীনতাবিরোধী অপশক্তি বাসে আগুন দিয়েছে দাবি আওয়ামী লীগের। অন্যদিকে বিএনপির দাবি, পূর্বপরিকল্পিত ও উদ্দেশ্যমূলকভাবে বাসে আগুন দেয়া হয়েছে। এতে বিএনপির সংযোগ নেই।

মতামত দিন