ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২

প্রতিবাদের মুখে প্রতিমন্ত্রীর ফোনালাপ

প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসানের একটি ফোনালাপ সোশ্যাল মিডিয়ায় ফাঁস হয়েছে। এক চিত্রনায়িকার সঙ্গে প্রকাশিত ওই ফোনালাপে প্রতিমন্ত্রীর কথোপকথন সহজভাবে নিতে পারছেন না দেশের শোবিজ অঙ্গনের মানুষেরা। বিষয়টি নিয়ে শোবিজে নানাভাবেই ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন অভিনয়শিল্পী, গায়ক-গায়িকা ও নির্মাতারা।

তথ্য প্রতিমন্ত্রীর মন্ত্রিত্ব থাকা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন আন্তর্জাতিকভাবে জনপ্রিয় নির্মাতা মোস্তফা সরয়ার ফারুকী। নারীর প্রতি ‘অবমাননাকর’ মন্তব্য করে বেশ তোপের মুখে পড়েছেন তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা.মুরাদ হাসান। এরই মধ্যে চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহির সঙ্গে দুটি ফোনালাপ রেকর্ড ফাঁস হয়েছে।

সোমবার মোস্তফা সরয়ার ফারুকী নিজের ভেরিফায়েড ফেসবুক পেইজে লিখেছেন, ‘আগের দিন দেখলাম প্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী বেগম খালেদা জিয়ার নাতনিকে নিয়ে অশ্লীলতম ভাষায় প্রজাতন্ত্রের একজন চাকর কথা বললেন। তার পরদিন সেই একই লোক এক অনুষ্ঠানে গিয়ে পুলিশ ভাইদের নসিহত করলেন, যাতে তারা কারো সঙ্গে ব্যবহার খারাপ না করেন। তার পরদিন শুনলাম উনি রেপ করার থ্রেট দিচ্ছেন কাউকে। এখন আপনারাই বলেন, এমন দেশটি কোথায় খুঁজে পাবেন?’

ক্ষোভ প্রকাশ করে ফারুকী লেখেন, ‘এসব দেখে ও শুনে একজন নাগরিক হিসেবে আমি যারপরনাই ক্ষুব্ধ।’

খ্যাতিমান এ নির্মাতা মনে করছেন, মন্ত্রিসভার অন্য সদস্যরা এখন মুরাদের সঙ্গে এক টেবিলে বসতে লজ্জাবোধ করবেন। এই ছোট্ট জীবনে আমার সুযোগ হয়েছে দু-একজন মন্ত্রী দেখার। আমি বিশ্বাস করি, তারা কেউই চাইবেন না এই লোক তাদের বিজ্ঞাপন হয়ে উঠুক।

অভিনেত্রী মেহের আফরোজ শাওন কলরেকর্ডটিকে কুৎসিত আখ্যা দিয়েছেন। তিনি নিজের ফেসবুক হ্যান্ডেলে লিখেছেন, ‘বৃষ্টিভেজা সুন্দর এই সকালটা শুরু হলো কুৎসিত এক কলরেকর্ড শুনে!’

নির্মাতা শিহাব শাহীন লিখেছেন, ‘সে একাধিকবার না বলেছিল।’

জনপ্রিয় রম্য লেখক শিমু নাসের লিখেছেন, ‘আওয়ামী লীগ এমপি ও প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান নিজেকে বাঁচাতে পারেন একটা উপায়ে। তিনি ঘোষণা দেবেন, দলে আমার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নিতে পারবে শুধু সে-ই, যে ক্ষমতায় এসে আমার মতো কখনো ক্ষমতার চরম অপব্যবহার করেনি।’

কণ্ঠশিল্পী নাজমুন মুনিরা ন্যান্সি লিখেছেন, ‘এমন বিকৃত রুচি, বিকৃত ভাষার মানুষ আমাদের বর্তমান সরকারের প্রতিমন্ত্রী! রাজনীতির ময়দানে পক্ষ-বিপক্ষ থাকবে এটাই স্বাভাবিক। তাই বলে সস্তা পাবলিসিটির জন্য যে লোক একজন নারীকে সম্মান দিতে জানে না তাকে ধিক্কার জানাই। জাইমা রহমানকে নিয়ে করা এমন জঘন্য বানোয়াট বক্তব্য প্রত্যাহারে সরকার কী ভূমিকা পালন করে তা দেখার অপেক্ষায় বাঙালি জাতি।’

বিএনপির শীর্ষস্থানীয় একজন নেতার কন্যাকে নিয়ে আপত্তিকর মন্তব্য করার অভিযোগে তথ্য প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হাসানকে নিয়ে চলছে আলোচনা-সমালোচনা। ঠিক এমন সময়ই ফোনালাপ ফাঁসের বিষয়টি সামনে এলো।

তাঁর এমন বক্তব্য নিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, তথ্য প্রতিমন্ত্রী মুরাদ হাসান ভার্চুয়াল আলোচনায় নারীবিদ্বেষমূলক যে বক্তব্য দিয়েছেন তা তাঁর ব্যক্তিগত মত। দলের বক্তব্য না।

মতামত দিন