ঢাকা, বাংলাদেশ │ মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২
প্রচ্ছদ » চট্টগ্রাম » ছিনতাই-ডাকাতি করেন তাঁতী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক

ছিনতাই-ডাকাতি করেন তাঁতী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক

চট্টগ্রাম মহানগরীর বাণিজ্যিক ব্যাংকের সামনে ওত পেতে থাকা একটি ছিনতাইকারী চক্রের ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করেছে কোতোয়ালি থানা পুলিশ। গ্রেপ্তারকৃত ছয়জনের মধ্যে একজন তাঁতী লীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক। তিনিও অন্যদের সঙ্গে ছিনতাই-ডাকাতি করেন বলে পুলিশ জানিয়েছে। গত শুক্রবার দিনব্যাপী নগরীর বিভিন্ন এলাকায় এই অভিযান চলে। গ্রেপ্তারকৃতদের কাছ থেকে একটি দেশীয় এলজি, দুই রাউন্ড কার্তুজ এবং ছিনতাইয়ে ব্যবহৃত দুটি মোটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলো কুমিল্লার হালিরচর থানার জয়নাল আবেদীনের ছেলে মো. কামাল হোসেন, পাঁচলাইশ থানার শুলকবহর এলাকার মৃত ইউনুছের ছেলে মোক্তার হোসেন, সাতকানিয়ার নুরুল কবিরের ছেলে মো. সাদ্দাম, ফটিকছড়ি দক্ষিণ ধুরুং গ্রামের কোরবান আলীর ছেলে মো. শের আলী, আনোয়ারার হাইলধর গ্রামের জহিরুল আলমের ছেলে মাসুদুর রহমান এবং সীতাকুণ্ডের উত্তর সলিমপুর গ্রামের মো. শামসুল হকের ছেলে মো. এরশাদ। তাদের মধ্যে মাসুদুর রহমান মাসুদ চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা তাঁতী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। ২০১৬ সালে তাঁর বিরুদ্ধে কোতোয়ালি থানায় দুটি ছিনতাইয়ের মামলা হয়েছিল।

ছয় ছিনতাইকারীকে গ্রেপ্তারের বিষয়ে শনিবার দুপুর সাংবাদিকদের অবহিত করেন উপকমিশনার এস এম মেহেদী হাছান। তিনি বলেন, গত ১৬ জুন দুপুরে ফারুক আহমদ নামের একজন এক্সিম ব্যাংক সিডিএ এভিনিউ শাখা থেকে পাঁচ লাখ টাকা তুলে অটোরিকশাযোগে আগ্রাবাদ যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে জমিয়তুল ফালাহ মসজিদ গেটে অটোরিকশার গতিরোধ করে ছিনতাইকারীরা টাকা ছিনিয়ে নিয়ে যায়।

এই ঘটনায় একটি মমালা দায়ের হয়। মামলার তদন্ত পর্যায়ে মাসুদকে কর্ণফুলী থানা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়। পরে তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে কামাল, মোক্তার, সাদ্দাম, এরশাদ ও শের আলীকে গ্রেপ্তার করা সম্ভব হয়।

একই বিষয়ে কোতোয়ালি থানার ওসি মো. মহসীন বলেন, শের আলী সোর্স হিসেবে ব্যাংকের আশপাশে ঘোরাফেরা করে। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে অন্যরা টার্গেটকৃত ব্যক্তিকে অনুসরণ করে এবং সুযোগ বুঝে ছিনতাই করে। তিনি বলেন, গ্রেপ্তারকৃতদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে।

মতামত দিন