কৃষক হত্যা মামলায় ৫ জনের ফাঁসি, ৩ জনের যাবজ্জীবন

লক্ষ্মীপুরে রায়পুর উপজেলায় জমি নিয়ে বিরোধের জের ধরে বৃদ্ধ আলী আকবর কারি হত্যা মামলায় পাঁচ আসামির ফাঁসি ও তিনজনের যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। এ সময় তিনজন খালাস পেয়েছেন।

বুধবার দুপুরে জেলা ও দায়রা জজ আদালতের বিচারক মোহাম্মদ রহিবুল ইসলাম এ রায় দেন।

লক্ষ্মীপুর জজ আদালতের সরকারি কৌঁসুলি (পিপি) জসিম উদ্দিন মামলার বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। তিনি বলেন, আসামিদের মধ্যে ছয়জন আদালতের উপস্থিত ছিলেন। বাকিরা পলাতক রয়েছেন।

মৃত্যুদণ্ডপ্রাপ্তরা হলো— মো. জসিম, সফিকুর রহমান, রুবেল হোসেন, নূর মিয়া বেপারি ও তৌহিদুর রহমান।

যাবজ্জীবন কারাদণ্ডপ্রাপ্তরা হলো— মো. জুয়েল, মোক্তার হোসেন ও রাহেলা বেগম। এর মধ্যে জুয়েল ও মোক্তার আদালতে উপস্থিত ছিলেন না। এ ছাড়া মামলা থেকে আসামি ওসমান কবিরাজ, উম্মে হাবিবা সুমাইয়াসহ তিনজন খালাস পেয়েছেন।

আদালত সূত্র জানায়, কৃষক আলী আকবরদের সঙ্গে প্রতিবেশী নুরুল ইসলামদের জমি নিয়ে বিরোধ ছিল। ২০১৮ সালের ৭ সেপ্টেম্বর বিরোধীয় জমি থেকে নুরুল ইসলামের পরিবার ডাব পাড়তে যায়। এতে আলী আকবররা বাধা দেয়। একপর্যায়ে নুরুল ইসলাম ও তার ছেলে মো. জসিমসহ আসামিরা আলী আকবরকে কুপিয়ে জখম করে।

আহতাবস্থায় তাকে প্রথমে রায়পুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি দেখে নোয়াখালী নেওয়ার পথে অ্যাম্বুলেন্সেই আলী আকবর মারা যান। রায়পুর উপজেলার উত্তর চরবংশী ইউনিয়নের খাসেরহাট গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

পরে নিহতের ছেলে তহিরুল ইসলাম বাদী হয়ে প্রতিপক্ষ মো. জসিমকে প্রধান করে ১১ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা করেন।

২০১৯ সালের ৮ সেপ্টেম্বর তিন আসামি আদালতের হাজির হয়ে জামিন আবেদন করে। শুনানি শেষে জামিন নামঞ্জুর করে আদালত তাদের কারাগারে পাঠানো নির্দেশ দেন।

এর আগে ২০১৯ সালের ১ এপ্রিল ১১ আসামির বিরুদ্ধে পুলিশ আদালতে অভিযোগপত্র দাখিল করা হয়। দীর্ঘ শুনানি ও ১৮ সাক্ষীর সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আদালত এ রায় দেন।

আসামি পক্ষের আইনজীবী মঞ্চুর জিলানী বলেন, রায়ে আমরা সন্তুষ্ট নই। রায়ের বিরুদ্ধে আমলা উচ্চ আদালতে আপিল করব।

মতামত দিন