ঢাকা, বাংলাদেশ │ মঙ্গলবার, ২৪ মে ২০২২
প্রচ্ছদ » আন্তর্জাতিক » যুক্তরাষ্ট্র » আবারও ঐক্যের ডাক দিলেন বাইডেন

আবারও ঐক্যের ডাক দিলেন বাইডেন

যুক্তরাষ্ট্রকে নিরাপদ, ঐক্যবদ্ধ ও পুনর্গঠন করতে আবারও ঐক্যের ডাক দিয়েছেন নবনির্বাচিত প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

ক্ষমতাগ্রহণের দুদিন আগে সোমবার মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র দিবস উপলক্ষে বাইডেন ওই ঐক্যের ডাক দেন। খবর ডনের।

জো বাইডেন নিজ শহর ডেলাওয়ার থেকে ফিলাডেলফিয়ায় দাতব্য কাজে যাওয়ার মধ্য দিয়ে মার্টিন লুথার কিং জুনিয়র দিবস পালন করেন।

এ উপলক্ষে এক ভিডিওবার্তায় বাইডেন বলেন, ‘আমাদের ভালোবাসার দেশটিকে নিরাপদ, ঐক্যবদ্ধ ও পুনর্গঠন করার কাজ শুরুর এখনই উপযুক্ত সময়।’

এর আগে নির্বাচনী প্রচারেও বাইডেন মার্কিনিদের ঐকের ডাক দেন। তবে ৭৮ বছরের জো বাইডেন যতই ক্ষত নিরাময় ও আশার কথা শোনান না কেন, বিশ্লেষকরা বলছেন– ক্ষমতার প্রথম দিন থেকেই তাকে কঠোর বাস্তবতার মুখোমুখি হয়ে কঠিন সংকটসমূহ মোকাবেলা করতে হবে।

যুক্তরাষ্ট্রে বর্তমানে করোনা মহামারী নিয়ন্ত্রণের বাইরে। টিকাদান কর্মসূচি প্রতিনিয়ত হোঁচট খাচ্ছে। এ ছাড়া রয়েছে ভঙ্গুর অর্থনীতি পুনরুদ্ধারের চ্যালেঞ্জ।

এদিকে ৬ জানুয়ারি পার্লামেন্ট ভবনে সশস্ত্র হামলার ঘটনার পর থেকে অনেকটাই নীরব রয়েছেন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। তিনি এখন পর্যন্ত নির্বাচনে তার পরাজয় স্বীকার কিংবা জয়ী প্রার্থীকে অভিনন্দন জানাননি।

যুক্তরাষ্ট্রের ঐতিহ্য অনুযায়ী বিদায়ী প্রেসিডেন্ট নতুন প্রেসিডেন্টকে ওভাল অফিসে চা চক্রে অংশ নিতে আমন্ত্রণ জানান। ট্রাম্প এ ক্ষেত্রেও দীর্ঘদিনের রীতি ভাঙলেন। এ ছাড়া বাইডেনের শপথ অনুষ্ঠানে না থাকার ঘোষণাও তিনি আগেই দিয়েছেন।

এদিকে সোমবার প্রকাশিত এক জনমত জরিপে দেখা গেছে, বিদায়ী প্রেসিডেন্ট হিসেবে ট্রাম্প তার জনপ্রিয়তার রেকর্ড সর্বনিম্ন অবস্থানে রয়েছেন। আর কোনো বিদায়ী প্রেসিডেন্ট এত কম জনপ্রিয়তা নিয়ে ক্ষমতা থেকে বিদায় নেননি।

ট্রাম্পের সর্বশেষ কিছু সিদ্ধান্তের ঘোষণা মঙ্গলবার হতে পারে। তিনি বেশ কিছু অপরাধীকে ক্ষমা করে দিতে যাচ্ছেন।

এমনকি তিনি নিজে ও তার সন্তান যারা হোয়াইট হাউসে উপদেষ্টা ও নির্বাচনী প্রচারণায় কাজ করেছেন, তাদেরও ক্ষমা করবেন বলে জল্পনা রয়েছে। ক্ষমা করা হবে এ রকম ১০০ লোকের তালিকা ট্রাম্পের কাছে রয়েছে।

এদিকে বুধবার সকালেই ট্রাম্প হোয়াইট হাউস ছেড়ে ফ্লোরিডায় মার এ লাগো গলফ ক্লাবে তার নিজ বাড়িতে চলে যাবেন।

বুধবার দুপুরে বাইডেনের শপথ নেওয়ার মধ্য দিয়ে মার্কিন প্রেসিডেন্টকে বহনকারী বিমান ট্রাম্প আর ব্যবহার করতে পারবেন না।

কারণ তখন থেকেই তিনি আর মার্কিন প্রেসিডেন্ট থাকছেন না। ট্রাম্প সকালেই যাচ্ছেন, কারণ প্রেসিডেন্ট হিসেবে শেষ মুহূর্তের সুযোগটুকু তিনি নিতে চাচ্ছেন।

মতামত দিন