ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২

অস্বস্তিতে ক্রিকেটাররা, তবুও সফর বাতিলের সুযোগ নেই: পাপন

স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথ করোনা পজিটিভ হলে নিউজিল্যান্ড সিরিজ নিয়ে শঙ্কায় পড়ে বাংলাদেশ দল। নিউজিল্যান্ড সফর বাতিল করে দেশে ফিরে আসতে পারে ক্রিকেটাররা এমন গুঞ্জন শোনা যাচ্ছিল। সে কথা স্বীকারও করেছেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের (বিসিবি) সভাপতি নাজমুল হাসান পাপন।

এমন পরিস্থিতিতে শনিবার দুপুরে মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে বিসিবি অফিসে হঠাৎ করেই বোর্ড পরিচালকদের নিয়ে বৈঠকে বসেন পাপন।

বৈঠক শেষে বিসিবি সভাপতি সাংবাদিকদের জানান, সফর বাতিল করে দেশে ফিরে আসার কোনো কোনো সুযোগ নেই। তবে নিউজিল্যান্ডে গিয়ে এ মুহূর্তে ক্রিকেটাররা স্বস্তিতে নেই।

তিনি বলেন, আগামী মঙ্গলবার পর্যন্ত নিউজিল্যান্ডে কোয়ারেন্টিনে থাকতে হবে ক্রিকেটারদের। এরপর পরবর্তী সিদ্ধান্ত জানাবে নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। এর আগে আনুষ্ঠানিকভাবে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া যাচ্ছে না।

পাপন বলেন, গত অস্ট্রেলিয়া সিরিজ থেকে শুরু করে টানা খেলার মধ্যে রয়েছে ক্রিকেটাররা। এখন নিউজিল্যান্ড সফরে রয়েছে তারা। এটি শেষ করে দেশে ফেরার ৪-৫ দিনের মধ্যেই বিপিএল শুরুর সম্ভাব্য তারিখ ঠিক করা আছে। এই ব্যস্ততা চলবে ২০২২ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত। আমরা খেলোয়াড়দের কোনো বিরতি বা বিশ্রামই দিতে পারছি না। খেলোয়াড়রা সবাই মানসিক ও শারীরিকভাবে খুবই বিপর্যস্ত অবস্থায় রয়েছে। কয়েকজন চেয়েছিল সিরিজটি বাদ দেওয়া যায় কি না, দেশে ফিরে আসা যায় কি না। কিন্তু এটার কোনো সূযোগ নেই, কোনো সুযোগই নেই।

অবশ্য নিউজিল্যান্ডের হাতেও সময় নেই বলে জানান পাপন।

তিনি বলেন, যদি ২১ তারিখের পর কোয়ারেন্টাইন সময় আরও বাড়ানো হয় তাহলে আমরা নিউজিল্যান্ড বোর্ডের সঙ্গে আলোচনায় বসব যে কী করা যায়। বাংলাদেশ সিরিজের এক সপ্তাহ পরই ওদের ওখানে অস্ট্রেলিয়া যাচ্ছে। তাই ওদের হাতেও সময় নেই। তাই দুই-চারদিন হয়তো (সফরের সূচি) এদিক-ওদিক করা যেতে পারে। এখন পর্যন্ত এটিই হচ্ছে অবস্থা।

উল্লেখ্য, বাংলাদেশ দলকে অনুশীলন করার অনুমতি দেওয়ার একদিন পর তা প্রত্যাহার করে নিয়েছে নিউজিল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়। ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত অনুশীলন থেকে বিরত থাকতে বলা হয়েছে মুমিনুলদের।

বাংলাদেশ দলের স্পিন বোলিং কোচ রঙ্গনা হেরাথের করোনা ধরা পড়ায় সেদেশের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় এই নির্দেশ দিয়েছে। বাংলাদেশ টেস্ট দলের আরও আটজন খেলোয়াড় ও সাপোর্ট স্টাফ আগে থেকেই আইসোলেশনে রয়েছেন। আপাতত ২১ ডিসেম্বর পর্যন্ত আবার বন্দি জীবন কাটাতে হবে তাদের।

সিরিজের প্রথম ম্যাচটি গড়ানোর কথা আগামী ১ জানুয়ারি, বে ওভালে। দ্বিতীয় ও শেষ ম্যাচটি হওয়ার কথা ৯ জানুয়ারি হ্যাগলি ওভালে।

মতামত দিন