রবিবার, ২৬ মে ২০২৪, ১২ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১

‘টেকা পাখি’ শুনেছেন? গানটা অনম বিশ্বাসের

‘টেকা পাখি’ শুনেছেন? গানটা অনম বিশ্বাসের

‘টেকা পাখি’ গান শুনেছেন? ওই যে, ‘টেকা, ও পাখি তুমি উইড়্যা উইড়্যা আসো’... টাকা নিয়ে এই ভালোবাসার গান ভাইরাল অন্তর্জালে। ইউটিউব ট্রেন্ডিংয়ে মিউজিক ক্যাটাগরিতে দুই নম্বরে ছিল এই গান, হালের জনপ্রিয় টিকটকে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ এই গানের সাথে টিকটক করেছে। গানটি অনম বিশ্বাসের, তাঁর গীতিকাব্যে সাড়া ফেলেছে ‘টেকা পাখি’। আলোচিত ‘দেবী’ সিনেমার পরিচালক হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন অনম বিশ্বাস। পরিচালকের বাইরে চিত্রনাট্যকার হিসেবে ঘরে তুলেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার; আলোচিত ‘আয়নাবাজি’ সিনেমার চিত্রনাট্য লিখে। গাতিকার হিসেবেও কম যান না অনম বিশ্বাস, আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের থিম সংও লিখেছেন তিনি; ‘চার ছক্কা হৈ হৈ, বল উড়াইয়া গেল কৈ...।’ টি২০ ওয়ার্ল্ড কাপের জন্য লেখা ওই লাইনের সাথে নেচে গেয়ে মাত হয়েছিল বাংলাদেশ এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা বাংলাদেশিরা। একদিক থেকে দেখতে গেলে সেটা বাংলাদেশের প্রথম ভাইরাল কনটেন্ট। গীতিকার অনম বিশ্বাসের কাছে প্রথমে শোনা যাক, ‘টেকা পাখি’ গান প্রসঙ্গে। এই গান প্রসঙ্গে অনম বিশ্বাস বলছেন, ‘প্রেমিকা যদি চাঁদ হয়, টাকা কেন পাখি নয়? টাকাকে নিয়ে লেখা এটা একটা লাভ সং। প্রেমিকাকে নিয়ে লাভ সং হয়, এটা তেমন টাকাকে নিয়ে লাভ সং। সে পাখি, সে ডারলিং, তাকে আমরা কাছে পেতে চাই, নিজের করে পেতে চাই, প্রতিদিন চাই, সব সময় চাই, প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে তাকে চাই। যাকে কাছে চাই, তাকে তো কাছে ডাকতেই হয়, এই গান সেই কাছে ডাকার গান।’ পরিচালক ও চিত্রনাট্যকার পরিচয়ের বাইরে অনম বিশ্বাস শুরুর গল্পটা, তখন গ্রে এ্যাডভারটাইজিংয়ের কর্মী। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের জন্য আইডিয়া করেন এবং লেখেন। গ্রামীন ফোনের টিভিসির জন্য লেখা দুই লাইন তখন খুব জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, ‘নির্ঘুম চোখ জানালায়, আমি নিজেকে শোনাই, নিজের গান/ স্বপ্নরা জেগে থাক, মনের ভেতর চলছে তুফান, তুফান...।’ ‘আয়নাবাজি’ সিনেমার জনপ্রিয় ‘ধীরে ধীরে বও না সময়’ গানটাও অনম বিশ্বাসের লেখা। একই সিনেমার টাইটেল ট্র্যাক ‘এ কেমন আয়নাবাজি, কে কাস্টমার কে মাঝি?’ গানটি গাউসুল আলম শাওন ও অনম বিশ্বাস একসঙ্গে লিখেছেন। এরপর বিভিন্ন সময়ে লিখেছেন অনেক গান। নিজের পরিচালনায় ‘দেবী’ সিনেমার টাইটেল ট্র্যাকের কথা লিখেছেন নিজেই। জি-ফাইভের জন্য নির্মাণ করা ‘হোয়াট দ্য ফ্রাই’ ওয়েব ফিল্মের জন্য লিখেছেন দুটো গান। এর ভেতর ‘কলিজা কি শিঙ্গারা?’ বেশ জনপ্রিয় হয় এর কথা, সুর ও গায়কির জন্য। অনম বিশ্বাস সাম্প্রতিক সময়ে আলোচনায় আছেন ‘দুই দিনের দুনিয়া’ শিরোনামের ওয়েব ফিল্ম নির্মাণ করে। দ্রুতই কাজ শুরু হচ্ছে তাঁর দ্বিতীয় সিনেমা ‘ফুটবল ৭১’; সরকারি অনুদান পাওয়া এই সিনেমায় স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের বীরত্ব উঠে আসবে। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীভিত্তিক ‘মুজিব : একটি জাতির রূপকার’ সিনেমার সংলাপ লেখকের দলে আছেন অনম বিশ্বাস।

‘টেকা পাখি’ গান শুনেছেন? ওই যে, ‘টেকা, ও পাখি তুমি উইড়্যা উইড়্যা আসো’...  টাকা নিয়ে এই ভালোবাসার গান ভাইরাল অন্তর্জালে। ইউটিউব ট্রেন্ডিংয়ে মিউজিক ক্যাটাগরিতে দুই নম্বরে ছিল এই গান, হালের জনপ্রিয় টিকটকে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ এই গানের সাথে টিকটক করেছে।  গানটি অনম বিশ্বাসের, তাঁর গীতিকাব্যে সাড়া ফেলেছে ‘টেকা পাখি’।  আলোচিত ‘দেবী’ সিনেমার পরিচালক হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন অনম বিশ্বাস। পরিচালকের বাইরে চিত্রনাট্যকার হিসেবে ঘরে তুলেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার; আলোচিত ‘আয়নাবাজি’ সিনেমার চিত্রনাট্য লিখে। গাতিকার হিসেবেও কম যান না অনম বিশ্বাস, আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের থিম সংও লিখেছেন তিনি; ‘চার ছক্কা হৈ হৈ, বল উড়াইয়া গেল কৈ...।’  টি২০ ওয়ার্ল্ড কাপের জন্য লেখা ওই লাইনের সাথে নেচে গেয়ে মাত হয়েছিল বাংলাদেশ এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা বাংলাদেশিরা। একদিক থেকে দেখতে গেলে সেটা বাংলাদেশের প্রথম ভাইরাল কনটেন্ট।  গীতিকার অনম বিশ্বাসের কাছে প্রথমে শোনা যাক, ‘টেকা পাখি’ গান প্রসঙ্গে।  এই গান প্রসঙ্গে অনম বিশ্বাস বলছেন, ‘প্রেমিকা যদি চাঁদ হয়, টাকা কেন পাখি নয়? টাকাকে নিয়ে লেখা এটা একটা লাভ সং। প্রেমিকাকে নিয়ে লাভ সং হয়, এটা তেমন টাকাকে নিয়ে লাভ সং। সে পাখি, সে ডারলিং, তাকে আমরা কাছে পেতে চাই, নিজের করে পেতে চাই, প্রতিদিন চাই, সব সময় চাই, প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে তাকে চাই। যাকে কাছে চাই, তাকে তো কাছে ডাকতেই হয়, এই গান সেই কাছে ডাকার গান।’  পরিচালক ও চিত্রনাট্যকার পরিচয়ের বাইরে অনম বিশ্বাস শুরুর গল্পটা, তখন গ্রে এ্যাডভারটাইজিংয়ের কর্মী। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের জন্য আইডিয়া করেন এবং লেখেন। গ্রামীন ফোনের টিভিসির জন্য লেখা দুই লাইন তখন খুব জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, ‘নির্ঘুম চোখ জানালায়, আমি নিজেকে শোনাই, নিজের গান/ স্বপ্নরা জেগে থাক, মনের ভেতর চলছে তুফান, তুফান...।’  ‘আয়নাবাজি’ সিনেমার জনপ্রিয় ‘ধীরে ধীরে বও না সময়’ গানটাও অনম বিশ্বাসের লেখা। একই সিনেমার টাইটেল ট্র্যাক ‘এ কেমন আয়নাবাজি, কে কাস্টমার কে মাঝি?’ গানটি গাউসুল আলম শাওন ও অনম বিশ্বাস একসঙ্গে লিখেছেন।  এরপর বিভিন্ন সময়ে লিখেছেন অনেক গান। নিজের পরিচালনায় ‘দেবী’ সিনেমার টাইটেল ট্র্যাকের কথা লিখেছেন নিজেই। জি-ফাইভের জন্য নির্মাণ করা ‘হোয়াট দ্য ফ্রাই’ ওয়েব ফিল্মের জন্য লিখেছেন দুটো গান। এর ভেতর ‘কলিজা কি শিঙ্গারা?’ বেশ জনপ্রিয় হয় এর কথা, সুর ও গায়কির জন্য।  অনম বিশ্বাস সাম্প্রতিক সময়ে আলোচনায় আছেন ‘দুই দিনের দুনিয়া’ শিরোনামের ওয়েব ফিল্ম নির্মাণ করে। দ্রুতই কাজ শুরু হচ্ছে তাঁর দ্বিতীয় সিনেমা ‘ফুটবল ৭১’;  সরকারি অনুদান পাওয়া এই সিনেমায় স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের বীরত্ব উঠে আসবে।  জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীভিত্তিক ‘মুজিব : একটি জাতির রূপকার’ সিনেমার সংলাপ লেখকের দলে আছেন অনম বিশ্বাস।

‘টেকা পাখি’ গান শুনেছেন? ওই যে, ‘টেকা, ও পাখি তুমি উইড়্যা উইড়্যা আসো’…

টাকা নিয়ে এই ভালোবাসার গান ভাইরাল অন্তর্জালে। ইউটিউব ট্রেন্ডিংয়ে মিউজিক ক্যাটাগরিতে দুই নম্বরে ছিল এই গান, হালের জনপ্রিয় টিকটকে ৫০ হাজারের বেশি মানুষ এই গানের সাথে টিকটক করেছে।

গানটি অনম বিশ্বাসের, তাঁর গীতিকাব্যে সাড়া ফেলেছে ‘টেকা পাখি’।

আলোচিত ‘দেবী’ সিনেমার পরিচালক হিসেবে খ্যাতি পেয়েছেন অনম বিশ্বাস। পরিচালকের বাইরে চিত্রনাট্যকার হিসেবে ঘরে তুলেছেন জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার; আলোচিত ‘আয়নাবাজি’ সিনেমার চিত্রনাট্য লিখে। গাতিকার হিসেবেও কম যান না অনম বিশ্বাস, আইসিসি টি-২০ বিশ্বকাপের থিম সংও লিখেছেন তিনি; ‘চার ছক্কা হৈ হৈ, বল উড়াইয়া গেল কৈ…।’

টি২০ ওয়ার্ল্ড কাপের জন্য লেখা ওই লাইনের সাথে নেচে গেয়ে মাত হয়েছিল বাংলাদেশ এবং বিশ্বের বিভিন্ন দেশে থাকা বাংলাদেশিরা। একদিক থেকে দেখতে গেলে সেটা বাংলাদেশের প্রথম ভাইরাল কনটেন্ট।

গীতিকার অনম বিশ্বাসের কাছে প্রথমে শোনা যাক, ‘টেকা পাখি’ গান প্রসঙ্গে।

এই গান প্রসঙ্গে অনম বিশ্বাস বলছেন, ‘প্রেমিকা যদি চাঁদ হয়, টাকা কেন পাখি নয়? টাকাকে নিয়ে লেখা এটা একটা লাভ সং। প্রেমিকাকে নিয়ে লাভ সং হয়, এটা তেমন টাকাকে নিয়ে লাভ সং। সে পাখি, সে ডারলিং, তাকে আমরা কাছে পেতে চাই, নিজের করে পেতে চাই, প্রতিদিন চাই, সব সময় চাই, প্রয়োজনে-অপ্রয়োজনে তাকে চাই। যাকে কাছে চাই, তাকে তো কাছে ডাকতেই হয়, এই গান সেই কাছে ডাকার গান।’

পরিচালক ও চিত্রনাট্যকার পরিচয়ের বাইরে অনম বিশ্বাস শুরুর গল্পটা, তখন গ্রে এ্যাডভারটাইজিংয়ের কর্মী। বিভিন্ন ব্র্যান্ডের জন্য আইডিয়া করেন এবং লেখেন। গ্রামীন ফোনের টিভিসির জন্য লেখা দুই লাইন তখন খুব জনপ্রিয় হয়ে ওঠে, ‘নির্ঘুম চোখ জানালায়, আমি নিজেকে শোনাই, নিজের গান/ স্বপ্নরা জেগে থাক, মনের ভেতর চলছে তুফান, তুফান…।’

‘আয়নাবাজি’ সিনেমার জনপ্রিয় ‘ধীরে ধীরে বও না সময়’ গানটাও অনম বিশ্বাসের লেখা। একই সিনেমার টাইটেল ট্র্যাক ‘এ কেমন আয়নাবাজি, কে কাস্টমার কে মাঝি?’ গানটি গাউসুল আলম শাওন ও অনম বিশ্বাস একসঙ্গে লিখেছেন।

এরপর বিভিন্ন সময়ে লিখেছেন অনেক গান। নিজের পরিচালনায় ‘দেবী’ সিনেমার টাইটেল ট্র্যাকের কথা লিখেছেন নিজেই। জি-ফাইভের জন্য নির্মাণ করা ‘হোয়াট দ্য ফ্রাই’ ওয়েব ফিল্মের জন্য লিখেছেন দুটো গান। এর ভেতর ‘কলিজা কি শিঙ্গারা?’ বেশ জনপ্রিয় হয় এর কথা, সুর ও গায়কির জন্য।

অনম বিশ্বাস সাম্প্রতিক সময়ে আলোচনায় আছেন ‘দুই দিনের দুনিয়া’ শিরোনামের ওয়েব ফিল্ম নির্মাণ করে। দ্রুতই কাজ শুরু হচ্ছে তাঁর দ্বিতীয় সিনেমা ‘ফুটবল ৭১’; সরকারি অনুদান পাওয়া এই সিনেমায় স্বাধীন বাংলা ফুটবল দলের বীরত্ব উঠে আসবে।

জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জীবনীভিত্তিক ‘মুজিব : একটি জাতির রূপকার’ সিনেমার সংলাপ লেখকের দলে আছেন অনম বিশ্বাস।

আরও পড়ুন:

আরও পড়ুন

বাংলার শিরোনাম ইউটিউব চ্যানেল সাবস্ক্রাইব করুন

সর্বশেষ সংবাদ