প্রচ্ছদ » সারা বাংলা » টঙ্গীতে ইজিবাইক-অটোরিকশা চলার অনুমতির দাবিতে মানববন্ধন

টঙ্গীতে ইজিবাইক-অটোরিকশা চলার অনুমতির দাবিতে মানববন্ধন

ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও অটোরিকশা বন্ধ হলে লাখ লাখ শ্রমিক পরিবারের দায়ভার কে নেবে— এ স্লোগান সামনে রেখে গাজীপুরের টঙ্গীতে ব্যাটারিচালিত ইজিবাইক ও অটোরিকশা চলার অনুমতির দাবিতে মানববন্ধন করেছেন মালিক-শ্রমিকরা।

মঙ্গলবার সকাল ১০টার দিকে টঙ্গীর এরশাদনগর বাসস্ট্যান্ড এলাকায় ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়ক অবরোধ করে মহানগর ইজিবাইক ও অটোরিকশা মালিক-শ্রমিকরা এ মানববন্ধন করেন। এতে মহাসড়কের উভয় পাশে যানজটের সৃষ্টি হয়। ফলে ভোগান্তিতে পড়েন অফিসগামী কর্মকর্তা-কর্মচারী, কলকারখানার শ্রমিক ও সাধারণ পথচারীরা। খবর পেয়ে টঙ্গী পশ্চিম থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে রিকশা শ্রমিকদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেন। 

পরে মানববন্ধনকারীরা এরশাদনগর থেকে একটি মিছিল নিয়ে মহাসড়কের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ স্থান প্রদক্ষিণ করে চেরাগআলী এলাকায় গিয়ে শেষ করে।

ইজিবাইক ও অটোরিকশাচালক মানিক, রকি, ফারুক, রাজু, সবুজ, সোহেল, মনির, কালু ও শাহাদাৎ জানান, টঙ্গী-গাজীপুরসহ আশপাশের এলাকায় ইজিবাইক ও অটোরিকশা চলাচল বন্ধ করে দেওয়ায় শত শত রিকশা শ্রমিক-চালক বেকার হয়ে পড়েছেন। এতে আমাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে চরম দুশ্চিন্তায় রয়েছি। এ ছাড়া বিকল্প কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা না করে এমনকি রিকশা চালানোর বিকল্প সড়কের ব্যবস্থা না করে আমাদের অনিশ্চয়তার দিকে ঠেলে দেওয়া হচ্ছে। এতে পরিবার-পরিজন নিয়ে রাস্তায় বসা ছাড়া আমাদের আর কোনো পথ থাকবে না। 

এ ব্যাপারে যোগাযোগ করা হলে টঙ্গী পশ্চিম থানার ওসি মো. শাহ আলম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, রিকশা শ্রমিকদের বুঝিয়ে মহাসড়ক থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছে। মহাসড়কে নয়; বরং ফিডার (শাখা) রাস্তায় রিকশা ও ইজিবাইক চালানোর ব্যাপারে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে তাদের জন্য কি করা যায় তা দেখা হচ্ছে।

মতামত দিন