ঢাকা, মঙ্গলবার, ৬ ডিসেম্বর ২০২২

কাতার হতে পারে যাদের শেষ বিশ্বকাপ

কাতার হতে পারে যাদের শেষ বিশ্বকাপ

ফুটবল বিশ্বকাপের ২২তম আসর মাঠে গড়ানোর অপেক্ষায় আছে পুরো বিশ্ব। চলতি বছরের নভেম্বরের মাঝামাঝি সময় থেকে কাতারে অনুষ্ঠিত হবে ফুটবলের এই সর্বোচ্চ আসর। ইতোমধ্যে ৩২ দলের আনুষ্ঠানিক ড্র সম্পন্ন হয়েছে। ফুটবলপ্রেমীদের কাছে একাধিক কারণে কাতার বিশ্বকাপ আগ্রহের কেন্দ্রবিন্দুতে আছে। কেননা, এই বিশ্বকাপের পরেই তাদের প্রিয় দলের জার্সিতে প্রিয় খেলোয়াড়কে হয়তো আর দেখা যাবে না।

আসন্ন কাতার বিশ্বকাপও কিছু ফুটবলারের শেষ বিশ্বকাপ হতে পারে।

লিওনেল মেসি (আর্জেন্টিনা) : বিশ্বকাপ মাঠে গড়ানোর আগেই নিজের বিদায়ের বার্তা দিয়ে ফেলেছেন লিওনেল মেসি। রেকর্ড সাতবারের ব্যালন ডি’অর জয়ী ফরোয়ার্ড জানিয়ে দিয়েছেন, এবারের আসরই হতে যাচ্ছে তার বর্ণাঢ্য ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপ।

ক্লাব ফুটবলকে দুহাত ভরে দিয়েছেন মেসি। ব্যক্তিগত অর্জনও ভুরিভুরি। সেই অর্থে জাতীয় দলকে কোপা আমেরিকা ছাড়া কিছুই জেতাতে পারেননি মেসি। তাই জীবনের শেষ বিশ্বকাপটা নিশ্চিতভাবে সাফল্যের রং তুলিতে আঁকতে চাইবেন আর্জেন্টাইন তারকা। আন্তর্জাতিক ফুটবলে দেশের হয়ে ১৬৪ ম্যাচে ৯০টি গোল করেছেন পিএসজি তারকা।

ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো : সর্বকালের অন্যতম আরেক সেরা ফুটবলার পর্তুগিজ তারকা ক্রিশ্চিয়ানো রোনালদো। ক্লাব ও আন্তর্জাতিক ফুটবলে ইতিহাসের ইতোমধ্যে সর্বাধিক গোলদাতার রেকর্ড অর্জন করেছেন তিনি। দেশের হয়ে জিতেছেন ইউরো চ্যাম্পিয়ন। পাঁচ বার ব্যালন ডি’অর জয়ী এই জনপ্রিয় ফুটবলারের বর্তমান বয়স ৩৭। কাতার বিশ্বকাপে তাকে মাঠে দেখা গেলেও পরবর্তী বিশ্বকাপে না পাওয়ার সম্ভাবনাই বেশি। কেননা তখন বয়স হবে ৪১। এই বয়সে ফিটনেস ধরে রেখে ফুটবল মাঠে দৌড়ানো প্রায় দুরূহ।

করিম বেনজেমা : ক্লাব ফুটবলে বড় আতঙ্কের নাম করিম বেনজেমা। রিয়াল মাদ্রিদের প্রাণভোমরা। নিজের ফুটবল শৈলীতে ক্লাবকে দিচ্ছেন দুহাত ভরে। ক্লাব ফুটবলে আলো ছড়িয়ে জাতীয় দল ফ্রান্সে জায়গা করে নিয়েছেন বেনজেমা। ২০২০ সালের ইউরোতে ফ্রান্স দলে ছিলেন তিনি। সম্প্রতি জিতেছেন প্রথমবার ব্যালন ডি’অর। তাই এবারের বিশ্বকাপে ফ্রান্সের ট্রাম্পকার্ড হতে পারেন বেনজেমা।

সেই সঙ্গে বেনজেমার ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপও হতে পারে এটি। ৩৫ বছরে পা রেখে এবারের বিশ্বকাপ শুরু করবেন ফরাসি তারকা। ফলে আগামী আসরে তাঁকে পাওয়া নাও যেতে পারে। নিশ্চিতভাবে ক্যারিয়ারের শেষ বিশ্বকাপটা রাঙাতে চাইবেন ফরাসি তারকা।

অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া : বিশ্বকাপের আগে আর্জেন্টিনার বড় দুশ্চিন্তার নাম ছিলেন অ্যাঞ্জেল ডি মারিয়া। তাঁর গোলেই কোপা আমেরিকায় শিরোপার অপেক্ষা শেষ হয় আর্জেন্টিনার। সেই ডি মারিয়া বিশ্বকাপের আগে চোটে পড়ে দলকে চিন্তায় ফেলে দিয়েছিলেন। আশার ব্যাপার হলো, শেষ পর্যন্ত চোট কাটিয়ে কাতার বিশ্বকাপ মাতাবেন এই জুভেন্টাস তারকা। কাতারে এই বিশ্বকাপটি ডি মারিয়ারও শেষ বিশ্বকাপ হতে পারে। ৩৪ বছর বয়সে তিনিও শুরু করবেন কাতার বিশ্বকাপ।

ম্যানুয়েল নয়্যার : জার্মান দলের অন্যতম নাম ম্যানুয়েল নয়্যার। বলা চলে, ইউরোপের অন্যতম গোলবারের প্রাচীর। ২০১৪ বিশ্বকাপেও জার্মানিদের গোলবার রক্ষায় অবদান রেখে সেরা গোলরক্ষকের পুরস্কার জেতেন তিনি।

জার্মানির প্রথম পছন্দের গোলরক্ষকেরও শেষ বিশ্বকাপ হতে পারে এটি। এই মুহূর্তে তাঁর বয়স ৩৬। স্বাভাবিকভাবে ২০২৬ সালের বিশ্বকাপে পাওয়া যাওয়ার সম্ভাবনা নেই তাঁকে। তাই গ্লাভস জোড়া খুলে ফেলার আগে কাতার বিশ্বকাপ স্মরণীয় করে রাখতে চাইবেন এই জার্মান তারকা।

লুকা মদ্রিচ : ক্রোয়েশিয়ার মাঝমাঠের প্রাণভোমরা লুকা মদ্রিচ। ২০১৮ সালের বিশ্বকাপে ক্রোয়াটদের ফাইনালে তুলতে বড় ভূমিকা তাঁর। সেবার জিতেছিলেন টুর্নামেন্ট সেরা খেলোয়াড়ের গোল্ডেন বল পুরস্কার। তবে সবকিছুরই তো শেষ আছে। মদ্রিচও সেই শেষের পথেই। রিয়াল মাদ্রিদ তারকার বর্তমান বয়স ৩৭। তাই ২০২৬ সালের বিশ্বকাপে তাঁকে পাওয়ার আশা না করাই ভালো।

এদিনসন কাভানি : উরুগুয়ের জার্সিতে আসন্ন বিশ্বকাপে শেষবারের মতো মাতাতে পারেন এদিনসন কাভানি। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড ছাড়ার পর কাভানি যোগ দেন ভ্যালেন্সিয়াতে। ৩৫ বছর বয়সে এই বিশ্বকাপ শুরু করবেন তিনি। স্বাভাবিকভাবে নিজের শেষ বিশ্বকাপে উরুগুয়ের আক্রমণভাগে বিশেষ কিছু করতে চাইবেন এই স্ট্রাইকার।

এখন পর্যন্ত জাতীয় দলের হয়ে ১২৯টি ম্যাচ খেলে ৫৬টি গোল করেছেন কাভানি। যার মধ্যে অ্যাসিস্ট আছে ১৭টি। কাতারে নিজ দলের গুরুত্বপূর্ণ ফ্যাক্টর হতে পারেন এই ফুটবলার।

লুইস সুয়ারেজ : কাভানির পাশাপাশি উরুগুয়ের আরেক খেলোয়ার লুইস সুয়ারেজ, যিনি ২০২২ সালের বিশ্বকাপের পর আন্তর্জাতিক ফুটবল থেকে অবসর নেবেন। ৩৫ বছর বয়সি সাবেক বার্সেলোনা খেলোয়াড় বর্তমানে ন্যাসিওনালের প্রতিনিধিত্ব করছেন, যে দলটিতে তিনি ক্যারিয়ারের প্রথম খেলা শুরু করেছিলেন। বিশ্বকাপের সেরা স্ট্রাইকারদের একজন হতে পারেন লুইস সুয়ারেজ। জাতীয় দলের হয়ে সর্বোচ্চ স্কোরার তিনি।

রবার্ট লেভান্দোভস্কি : এই সময়ের আরেক পরিচিত স্ট্রাইকার রবার্ট লেভান্দোভস্কি। গোল বন্যায় বায়ার্ন মিউনিখ মাতিয়ে যার বর্তমান ঠিকানা বার্সেলোনা। আসন্ন বিশ্বকাপে পোল্যান্ডের হয়ে তিনিও শেষ বিশ্বকাপ খেলে ফেলতে পারেন। ৩৪ বছর বয়সে চলতি বিশ্বকাপ শুরু করবেন পোলিশ স্ট্রাইকার। পোল্যান্ডের হয়ে মোট ১৩৪টি ম্যাচ খেলে ৭৬টি গোল করেছেন তিনি। চ্যাম্পিয়নস লিগে বার্সেলোনাকে পরের ধাপে নিয়ে যেতে না পারলেও নিজ দেশের হয়ে বিশ্বমঞ্চ দারুণ কিছু করতে চাইবেন লেভা।

টমাস মুলার : জাতীয় দলের হয়ে বিশ্বকাপ জয়ের স্বাদ পেয়ে গেছেন জার্মান তারকা টমাস মুলার। দেশের হয়ে বিশ্বকাপে ১৬টি ম্যাচ খেলে ১০টি গোল করেছেন তিনি। সঙ্গে আছে ছয়টি অ্যাসিস্ট। তাই এবারও জার্মান দলের গুরুত্বপূর্ণ সদস্য তিনি। ৩৩ বছর বয়সি এই তারকাও সম্ভবত নিজের শেষ বিশ্বকাপ খেলতে যাচ্ছেন কাতারে।

মতামত দিন